সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

ভালোবাসা আর ভালো লাগার গল্প

 ------ভালো-----লাগার-----গল্প------ মিতুর মায়ের এক হলুদ শাড়ি ছিল – হুম্‌, মায়ের শিফন শাড়িটির রং ছিল এক্কেবারে সর্ষে ফুল হলুদ। মিতুর স্পষ্ট মনে আছে। সরস্বতী পুজো মানেই মায়ের সেই  হলুদ শিফন শাড়ি পড়ে পাড়ার পুজোয় পুষ্পাঞ্জলি দেওয়া – এই ছিল ছোট্ট মিতুর নিয়ম।  ভালো লাগার গল্প  আর, সেই জন্যেই বোধহয় মিতুর স্মৃতির রং, ছেলেবেলার রং হলুদ- উজ্জ্বল হলুদ। বয়স বাড়তে বাড়তে কি সেই উজ্জ্বল হলুদ এর একটু রং চটে গেছে? একটু ফিকে হয়ে গেছে? আজও, জীবনের অস্ত রাগে এসে মিতু মনে মনে সেই ছেলেবেলার হলুদের উজ্জ্বলতা খোঁজে, রং খোঁজে। অচিন মেয়ের গল্প বয়স যতই বাড়ে – এক বিন্দু, এক বিন্দু করে অতীত দীর্ঘ হয়, স্মৃতির তালিকা বাড়ে, ভবিষ্যৎ হতে থাকে সংকুচিত, ভীরু। সেই সময়ে যেন অতীতটাকেই বড্ড ভালো লাগে। আজকাল মিতু মাঝে মাঝেই, মনে মনে তাঁর ছেলেবেলার সেই শহরেই বসবাস করে। সেই ছেলেবেলার শহরের গলি গুলো যেন মানসচক্ষে স্পষ্ট ভেসে ওঠে। মায়ের হলুদ শাড়ির আঁচলেই যে মিতুর এক গোটা জীবনের স্বপ্ন বোনা শুরু হয়েছিল। কবে সেই হলুদ শাড়িটির রং বদলে যেতে শুরু করেছিল, তা মিতু বড় হতে হতে বুঝতেই পারে নি।  ভালো লাগার গল্প  এক
সাম্প্রতিক পোস্টগুলি

কষ্টের ভালোবাসার গল্প ( Bangla Koster golpo) my tech bd

Bangla Sera Koster golpo  কষ্টের ভালোবাসার গল্প ( Bangla Koster golpo) আমার যে কেউ নেই। তুমি বললে, এ বাবা, কী হলো উনার? এমন ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে আছে কেন? আমি লজ্জায় নীল হয়ে যাই। চোখে ভাসে একটা বাক্য। সবুজ জীবন, নীল মৃত্যু। এর মানে কী? জানা নেই। একজীবনে কতকিছুরই তো মানে জানি না আমরা। ঠিক না? Bangla Koster golpo  তুমি বললে, ঠিক। আমি থরথর কেঁপে উঠি। এ দেখি সাংঘাতিক। মাইমুনা ঠিক বলল কী করে? সে কি মনের কথা শুনতে পায়! নিলা বলল, মাইমুনা আপু, তোমাকে বলেছি না গিট্টু কথা বলে না! তুমি অবাক হয়ে বললে, কথা বলে না মানে! বোবা? আমার মনে হলো বাতাসে মিলিয়ে যাই। Bangla Koster golpo  2021 নিলাটা এমন কেন! খালি উত্তর-দক্ষিণ প্যাঁচাল। তুমি চানতে চাইলে, সত্যি? আমি বললাম, না, মিথ্যা। তুমি আবারও সেই পাখি-ওড়ানো হাসিটা দিলে। ফিক। সেদিন অনেক কথা হয়নি। নাকি হয়েছিল? এতদিন পর এসে কী মনে হয় তোমার? আমারটা বলব না, বুকের গহীনে জমানো থাকুক। সবকথা বলতে নেই যে। হ্যাঁ, ঠিক। সব কথা শুনতেও নেই। তোমাকে অনুভবে পেলাম, আর বাবাকে হারিয়ে ফেললাম চিরদিনের মতো। জানতে পেরেছিলাম, বাবা আসলে পাশের গ্রামেকাশি কাকার কাছে যেত না। বাবা যেত অন্

গল্পটা অনেক কষ্টের ছিল । তবুও লিখে বাধ্য হলাম Bangla Koster golpo -My Tech bd

Bangla Koster golpo   আয়েশা বুবু বিয়ের পর বাপের বাড়ি ফিরে এসেছে। তার স্বামী মিশহাব গোপনে দ্বিতীয় বিয়ে করেছে। আয়েশা বুবু তার একমাত্র কন্য নিলাকে নিয়ে দু্র্লভপুর চলে আসে। আয়েশা বুবুর মেয়ে নিলা। ক্লাস ফাইভে পড়ে। আমি তখন ক্লাস এইট। গল্পটা অনেক কষ্টের ছিল । তবুও লিখে বাধ্য হলাম Bangla Koster golpo -My Tech bd  Golpo ta kicuta onno rokom নিলার সাথে আমার কীভাবে যেন ভাব হয়ে যায়। কিংবা বলা যায় একটা চড়ুইপাখির সাথে। নিলাকে আমার চড়ুইপাখি বলে মনে হয়। সারাক্ষণ কিচিরমিচির কিচিরমিচির। এই গিট্টু এট নেব, এই গিট্টু ওইটা নেব। আমিও তখন মুখ খুলতে শিখেছি, কী নিবি নে না। কে তোকে মানা করছে! নিলা মুখ ফুলিয়ে বলে, যদি রাহুল কাকা বকে! আমি হেসে বলি, বাবা তো এখন বাড়িতে নেই। কে তোকে বকবে? তোর যেটা ইচ্ছা নিয়ে নে। নেওয়ার মতো অবশ্য তেমন কিছু নেই। গাছের পাতা, গাছের ফুল। আর ছিল বরই গাছের বরই। মায়ের হাতে লাগানো গাছ। টকটক বরই ধরে। Sei Janto Ki hote cholece.. সেই বরই খেতে অস্থির হয়ে থাকে এলাকার বাচ্চারা। তারপর একদিন টের পাই, কেবল বাচ্চারাই না, আরো একজনা। বাবা কেমন যেন বদলে গেছে। ইদানীং বাড়িতে বেশি থাকে না। কোনোকোনো দিন রাতেও

ভালোবাসা সত্যিই কি এমন ভাবে কাদায় ? Valobasar golpo

The Fake Love Story  ভালোবাসা সত্যিই কি এমন ভাবে কাদায় ? Valobasar golpo কষ্টকর সত্যিই অনেক কষ্ট কর  তারপর আমাদের আর দেখা হলো না। তুমি চলে যাওয়ার পর। আমি অনেক চেষ্টা করেছিলাম...সহস্ররকমে... কিন্তু না, হয়নি। কথাটা আজও কানে বাজে আমার। শঙ্খদা, আমাকে ফিরিয় দিয়ো না, প্লিজ। আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসি। তারপর একদিন রেনু এসে বলল, কোন এক ইসমাইলের সাথে তোমার বিয়ে। তুমি রংপুর থেকে ঢাকায় চলে যাচ্ছ। আমি যখন শুনলাম, সেটাও মধ্যদুপুর। রেনু বলল আমি শুনলাম। কিংবা রেনু বলল, আমি কিছু শুনলাম না। আমি তখন অনেক কিছুই শুনতে পাই না শিরিন। আমার এখন ৬৬, আমার স্ত্রীর ৬০। সম্প্রতি ওর ক্যান্সার ধরা পড়েছে। ব্যথা-বেদনায় সে বেচারি কাহিল থাকে সারাক্ষণ। আমার পক্ষে যতটুকু সম্ভব দেখভাল করি। আমাদের একটামাত্র সন্তান, ঢাকায় থেকে পড়াশোনা করে। বেশি বয়সের সন্তান, ছোটই বলতে হবে। সুবাস। আমি জানি তুমি আসবে  কোনো এক গভীররাতে সুলতার অবস্থা বেশ খারাপ হয়ে গেল। আমার হাত জড়িয়ে ধরে বলল, আর বোধহয় বাঁচব না গো। সুবাসকে দেখে রেখো। অবস্থা আসলেই সঙ্গিন। সুলতার শ্বাসটান উঠে গেছে। এখনই ঢাকায় নিতে হবে। গাড়ি ঠিক করা ছিল। সুবাসকে কল দিলাম। ঢাকার হসপিটা

গল্পটা অসহায় গিটুর | অসহায় ছেলের ছোট গল্প[ My Tech BD ]

গল্পটা অসহায় গিটুর | অসহায় ছেলের ছোট গল্প কষ্টের গল্প ২০২১  আমি গিটু। বড়ো হচ্ছি, বেড়ে উঠছি, কিন্তু আমার কোনো বন্ধু নেই। আমার মনে কোনো অভিমানও নেই। মা জানতে চাইত, খোকা, তুই এমন কেন বল তো? পাড়ার ছেলেদের সাথে মিশিস না, তোর কোনো বন্ধুও নেই। তুই এমন কেন গিটু? তাই তো। গিটু, গিটু রে, তুই এমন কেন? সেই ছোটবেলা থেকে আজ পর্যন্ত। কোনো বন্ধু বান্ধব নেই তোর। তুই তোর মতো, পথের ধুলো বাতাসের কণা রোদের ফালি চড়ুইডানা জঙলা ভিটার সিপাই। একা একা। কেন, এমন কেন? গল্পটা অসহায় গিটুর  কথাটা আমি নিজেও অনেকবার বোঝার চেষ্টা করেছি, পারিনি। এসবের কোনো উত্তর এসে পৌঁছায় না আমার কাছে। আমি আগের মতোই ঠায় দাঁড়িয়ে থাকি। আমি আমার মতোই... মায়ের খুব ইচ্ছা ছিল আমার একটা বোন হোক। মা খুব চাইত ভগবানের কাছে। সন্ধা-আরতী দেওয়ার সময় কতদিন মায়ের চোখে জল দেখতাম। বাবাকে একদিন বলতে শুনি, অমন করতে নেই গিটুের মা। ভগবান কুপিত হবেন। ঠাকুর তোমাকে এত সুন্দর একটা সন্তান দিয়েছেন, তারপরেও কেন তুমি এমন করছ? মা কেন এমন করে সেটা আমিও বুঝি না। তবে একদিন আমাকে কাছে বসিয়ে মা জানতে চেয়েছিল, হ্যাঁ রে গিটু, তোর কি খুব একা লাগে বাবা? তোর কোনো ভাই নেই, বোন ন

গল্পটা - গল্প হিসাবেই থাক || ২০২০ সালের নতুন গল্প কাহিনি MY Tech BD

  আমার জন্য শুধু তুমিই ছিলে || MY Tech BD আমার জন্য শুধু তুমিই ছিলে ২০২০ সালের নতুন গল্প  আমার দরকার কঠিন সুরে বলল মেয়েটা। ওগুলো যতটুকু তোমার ততটুকুই আমার। ওগুলো আমার সিম সিস্টারস। তুমি সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত ওগুলো আমার কাছে থাকবে।' বেনের দিকে ফিরে হাসল অ্যান। 'এটা দারুণ। কি, দারুণ নয়, বেঞ্জামিন? আমার নিজের সিম আমার ব্যাপারে কত দরদ আর মায়া দেখাচ্ছে। বেশ, এই হলো আমার সুবিবেচনাপ্রসূত উত্তর। নেক্সট ফাইল! ডিলিট! নেক্সট ফাইল! ডিলিট! নেক্সট ফাইল! ডিলিট! নেক্সট ফাইল!' একের পর এক ফাইলগুলো মিটমিট করতে করতে অস্তিত্ব হারাতে লাগল। '@থামো তুমি!' মেয়েটা চেঁচিয়ে উঠল। ' বেন, ওকে থামাতে বাধ্য করো!' 'বেনকে লক্ষ্য করে কথা বলছ তুমি, তোমার এত স্পর্ধা?' খেপে উঠছে অসুস্থ অ্যান। 'তাও আবার বেঞ্জামিন না বলে শুধু বেন বলছ? তুমি তো মাত্র গ্রাজুয়েট হয়েছ, বেনের সঙ্গে তোমার এখনও বিয়েও হয়নি, তার আগেই এত কিছু? তুমি শুধুই একটা সিম, তার বেশি কিছু নও, আর বেন তোমার স্বামীও নয়, আর তাছাড়া, তোমার বয়স এত কম তো নয় যে এসব তোমার জানা নেই। তারপরও ?  আমি আছি আজও তোমার অপেক্ষায়  'স্বামী যে

এক অসহায় লোকের গল্প | কষ্টের গল্প ২০২১

এক অসহায় লোকের গল্প গল্পটা এক অসহায় লোকের জীবনের  অর্থোপার্জনের নানাবিধ উৎস আছে। আপনি কোন উৎস খুঁজে নেবেন সেটাই আসল কথা। উৎস যেই হোক না কেনত্ম আপনার অর্থের প্রয়োজন। সেটা ব্যবসা হোক, চাকরী হোক, ব্যাংক হোক, বীমায় কাজ করে হোক, ঠিকাদার-কন্ট্রাক্টরী হোক, ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার, উকিল, বিজনেস হোল্ডার, বিনিয়োগকারী, বন্ড ও শেয়ার বিনিয়োগ যাই হোক না কেন টাকা কার না চাই। টাকার জন্যে বেঁচে থাকা, টাকার জন্যে প্রেম-ভালোবাসা, টাকার জন্যে খেয়ে-পরে বাঁচা, টাকার জন্যে সুখ-সাচ্ছন্দ্যে থাকা, টাকার জন্যে আত্মসম্মানে বাঁচা, টাকার জন্যে সুনাম-সুখ্যাতি পাওয়া।  টাকা কোথায় নেই। সবখানে সর্বত্রই টাকার জয়গান, উল্লাস, উন্মাদনা। তরুণীর ভালোবাসা নষ্ট হয় টাকার জন্যে। প্রিয়া ফাঁকী দিয়ে চলে যায় টাকার জন্যে। তাই তো টাকা ছাড়া জীবন অন্ধকার, সবই ফাঁকা। আমরা আর এই কষ্টদায়ক কথাগুলো শুনতে চাই নাত্ম আমাদের চাই কাড়ি কাড়ি টাকা, কোথায় গেলে তার সন্ধান পাবো। কে দেবে সেই গুপ্ত রহস্যের সন্ধান। আসুন একটু বুদ্ধি খাটিয়ে খুঁজে বের করি সমস্ত গুপ্ত রহস্যের পথ। যে পথের খোঁজ আমরা সকলে কম-বেশি জানি তবে কোনদিন ভালো করে পরখ করিনিত্ম লক্ষ্য করিনি এই